Home জেলার খবর বিজেপি শাসিত রাজ্যে বাঙালি আন্দোলনকারীদের উপর পুলিশের গুলি, নিহত যুবক

বিজেপি শাসিত রাজ্যে বাঙালি আন্দোলনকারীদের উপর পুলিশের গুলি, নিহত যুবক

সৌমেন শীল, আগরতলা: নিরস্ত্র আন্দোলনকারীদের উপরে গুলি চালাল পুলিশ। যার কারণে প্রাণ গেল এক যুবকের। সেই সঙ্গে জখম হয়েছেন আরও নয় জন। নিহত এবং আহত সকলেই বাঙালি। বিজেপি শাসিত রাজ্য ত্রিপুরার ঘটনা।

ঘটনার সূত্রপাত ওই রাজ্যে ব্রু-রিয়াং শরণার্থীদের পুণর্বাসন দেওয়া নিয়ে। চলতি বছরের জানুয়ারি মাসে ত্রিপুরা রাজ্যে তাঁদের পাকাপাকিভাবে বসবাসের ব্যবস্থা করে কেন্দ্র। নয়া চুক্তি অনুসারে তারা ত্রিপুরার ভোটার হয়ে গিয়েছে। বিপুল পরিমাণ আর্থিক প্যাকেজও ঘোষণা করা হয়। কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপত্তি তুলেছে কাঞ্চনপুরের বাঙালিরা। শুরু হয়েছে আন্দোলন।

- Advertisement -

নিজেদের চার দফা দাবি নিয়ে বারবার প্রশাসনের দ্বারস্থ হয়েছে কাঞ্চনপুরের বাঙালিরা। কোনও সুরাহা না হওয়ায় শনিবার অসম-আগরতলা জাতীয় সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখানো শুরু করেন আন্দোলনকারীরা।

অভিযোগ উঠেছে যে ওই নিরস্ত্র আন্দোলনকারীদের উপরে গুলি চালায় পুলিশ। এমনই জানিয়েছেন আন্দোলনের নেতা অনুপ নাথ। তাঁর কথায়, “চার দফা দাবি পূরণের দাবিতে গত সোমবার থেকে কাঞ্চনপুর মহকুমা বনধ চলছে। আমাদের কোনও দাবি প্রশাসনিক কর্তারা মানেননি। সেই কারণে আজ আমরা রাস্তা অবরোধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম। তখন আমাদের উপর পুলিশ গুলি চালায়।”

একই সঙ্গে অনুপবাবু আরও বলেছেন, “অনেক শিশু এবং মহিলা ছিলেন। সেসব কিছু না দেখেই গুলি চালিয়ে দেয় পুলিশ। একজন ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারিয়েছেন। আরও একজনের পায়ে গুলি লেগেছে। ২০-২৫টি গাড়ি ভাঙচুর হয়েছে। ৯ জন জখম হয়েছেন।”

পুলিশ বিনা প্ররোচনায় গুলি চালিয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন অনুপ নাথ। পুলিশের গুলিতে মৃত ওই ব্যক্তির নাম শ্রীকান্ত দাস। জখম অনেকেরই অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন অনুপবাবু।

ব্রু-রিয়াং উপজাতির লোকেরা মিজোরাম থেকে ত্রিপুরায় এসে বসবাস শুরু করেছিল ১৯৯৭ সালে। মিজোরামে গোষ্ঠী সংঘর্ষের কারণে ওই উপজাতির প্রায় ৩৫ হাজার মানুষ মিজোরাম ত্যাগ করে এবং ত্রিপুরায় এসে বসবাস করতে থাকে। অভিযোগ, গত ২৩ বছর ধরে বাঙালিদের উপরে চরম অত্যাচার চালিয়েছে মিজোরাম থেকে আসা রিয়াং উপজাতির লোকেরা। বহু বাঙালিকে হত্যা করেছে, তাদের জন্যেই অনেক বাঙালি ঘর ছাড়া হয়ে রয়েছেন। নিজভূমেই পরবাসী হতে হয়েছে ত্রিপুরার কাঞ্চনপুরের ৫০০ বাঙালি পরিবারকে।

সেই উপজাতির মানুষদেরকেই ফের পুণর্বাসন দেওয়া হচ্ছে ত্রিপুরাতেই। যার কারণে আবারও সিঁদুরে মেঘ দেখতে শুরু করেছেন কাঞ্চনপুরের বাঙালিরা। যা নিয়েই শুরু হয়েছিল আন্দোলন। এখন চলছে অনশন। আন্দোলনকারীদের বক্তব্য, “কাঞ্চনপুরের বহু বাঙালিকে অপহরণ করে হত্যা করেছে রিয়াং-রা। অনেকেই নিজের ভিটেমাটি ছেড়ে চলে যেতে বাধ্য হয়েছে। তাঁদেরকেই আবার এখানে সরকার থাকার ব্যবস্থা করে দিচ্ছে পাকাপাকিভাবে। এতেই আমাদের আশঙ্কা বাড়ছে।”

বাঙালিদের পাশাপাশি বেশ কিছু মিজো পরিবারও এই আন্দোলনে সামিল রয়েছেন। তাঁদের পক্ষ থেকেও একই অভিযোগ করা হয়েছে। যদিও আন্দোলনকারীদের বক্তব্য, “রিয়াং উপজাতিরা ত্রিপুরাতে থাকতে পারেন। তবে কাঞ্চনপুর মহকুমা থেকে তাদের সরানো হোক। অনেক অত্যাচার করেছে। এখানেই পাকাপাকিভাবে ওরা থাকতে শুরু করলে বাঙালির আর কোনও অস্তিত্ব থাকবে না।”

- Advertisment -

সবচেয়ে জনপ্রিয় সংবাদ

আইপিএলের মাঝেই স্ত্রী-মেয়ের সঙ্গে ছবি পোস্ট করলেন রোহিত শর্মা

দুবাই: সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে শুরু হয়েছে ১৩ তম ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ। ইতিমধ্যেই সমস্ত দল ৭টি করে ম্যাচ খেলে ফেলেছে। শীর্ষে রয়েছে চারবারের আইপিএল চ্যাম্পিয়ন...

অ্যাপল স্মার্ট ঘড়িকে টেক্কা দিতে বাজারে আসছে ওপো ওয়াচ

খুব শীঘ্রই লঞ্চ হচ্ছে ওপোর প্রথম স্মার্ট ঘড়ি। স্মার্ট ফোনের পাশাপাশি স্মার্ট ঘড়ির চাহিদা দিন দিন বেড়েই চলেছে। আর ঠিক সেই কারণেই স্মার্ট ঘড়ির...

সার্বিক লকডাউনের ব্যাপক প্রভাব হাওড়ায়

নিজস্ব প্রতিনিধি, হাওড়া: রাজ্য সরকারের পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী আজ সাপ্তাহিক লকডাউনের তৃতীয় দিন৷ আগের দু’দিনের মতো এই লকডাউনেরও ব্যাপক প্রভাব পড়েছে রাজ্যজুড়ে৷ সকাল থেকে...

আর্থিক অনটন, গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে নদিয়ায় আত্মঘাতী নির্মাণ শ্রমিক

নিজস্ব প্রতিনিধি, নদিয়া: লকডাউনের জেরে বন্ধ কাজকর্ম৷ ফলে কর্মহীন হয়ে পড়েছেন বহু শ্রমিক৷ চরম আর্থিক কষ্টের মধ্যে দিয়ে দিন কাটছে তাদের৷ সেখান থেকে পারিবারিক...
- Advertisment -

খবর এই মুহূর্তে

কেন্দ্রীয় কৃষি আইন প্রত্যাহারের দাবিতে বিক্ষোভ কর্মসূচী বামেদের

নিজস্ব সংবাদদাতা, নদিয়া: কৃষক বিরোধী কেন্দ্রীয় কৃষি আইন প্রত্যাহারের দাবিতে কৃষক সভা বামপন্থী সংগঠনের পক্ষ থেকে শুক্রবার দুপুরে নদিয়ার নাকাশিপাড়ায় এক প্রতিবাদী পথসভার আয়োজন...

কৃষক আন্দোলনে পাঞ্জাব উত্তাল হলেও বাংলা নিশ্চুপ কেন, উঠছে প্রশ্ন

মনোজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায়: ভারত যুক্তরাষ্ট্রের স্বাধীনতার সংগ্রামে সবথেকে অগ্রণী জাতিটা ছিল বাঙালি আর তার পরেই পাঞ্জাবী। স্বাধীনতার জন‍্য সবথেকে বেশী মূল‍্যও দিয়েছে দুটো জাতিই, খণ্ডিত...

বিহারীদের পাশে দাঁড়িয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে আক্রমণ দিলীপের

চুঁচুড়া: রাজ্যের উন্নতিতে অবাঙালিদের প্রভূত অবদান রয়েছে বলে দাবি করেছিলেন বঙ্গ বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ। আর সেই অবদান বাঙালিদের থেকে অনেক বেশি বলেও দাবি...

সদ্যোজাত শিশুসহ মাকে ফেলে দেওয়ার হুমকি হাসপাতালের ‘কর্ম বন্ধু’র

নিজস্ব সংবাদদাতা, বাঁকুড়া: সদ্যজাত একশিশু সন্তানের মায়ের সঙ্গে দুর্ব্যবহারের অভিযোগ উঠল হাসপাতালের চুক্তিভিত্তিক এক কর্ম বন্ধুর বিরুদ্ধে। বাঁকুড়ার বিষ্ণুপুর সুপার স্পেশ্যালিটি হাসপাতালের ঘটনা। আর...